একুশে জুলাইয়ে নতুন কর্মসূচি গ্রহণ করল গেরুয়া শিবির (Bengal BJP)

ফাইল চিত্র

সুরশ্রী রায় চৌধুরী: ‘শহিদ দিবসে’র পালটা বিজেপির (BJP) ‘শহিদ শ্রদ্ধাঞ্জলি দিবস’। এবারের একুশে জুলাইয়ে নতুন কর্মসূচি গ্রহণ করল গেরুয়া শিবির (Bengal BJP)। দিল্লিতে এই মুহূর্তে চলছে সংসদের বাদল অধিবেশন। অনেক সাংসদই সেখানে রয়েছেন। দিল্লিতে (Delhi)রয়েছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি তথা মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষও। তাঁর নেতৃত্বে বুধবার দিল্লির রাজঘাটে পালিত হবে শ্রদ্ধাঞ্জলি দিবস। রাজ্যেও বিভিন্ন জাগায় শ্রদ্ধাঞ্জলি দিবস পালন করবেন বিজেপি কর্মী, সমর্থকরা। মঙ্গলবার সাংবাদিক বৈঠক করে এ কথা জানালেন রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য।

আরো পড়ুন  ডুয়ার্সের চা বাগান থেকে উদ্ধার চিতাবাঘের মৃতদেহ

১৯৯৮ সালে শহীদ হওয়া তৃণমূল কর্মীদের স্মরণে প্রতিবছরই একুশে জুলাই শহীদ স্মরণ দিবস পালন করে আসে তৃণমূল কংগ্রেস। ব্যতিক্রম হয়নি এ বছরও। শুধু তাই নয়, লোকসভা ২০২৪ এর কথা মাথায় রেখে এবছর শহীদ দিবসকে পশ্চিমবঙ্গের বাইরে অন্যান্য রাজ্যে ছড়িয়ে দিতে তৎপর তৃণমূল (TMC)। ইতিমধ্যেই ত্রিপুরা এবং দিল্লিতেও শহীদ দিবস পালনের জন্য আয়োজন করতে শুরু করেছে তারা। পালিত হবে আরও বেশ কিছু রাজ্যেও।

এদিকে এরইমধ্যে বড় পদক্ষেপ নিল বিজেপিও (BJP)। জানা গিয়েছে একদিকে যখন আগামী লোকসভার কথা মাথায় রেখে দেশের বিভিন্ন রাজ্যে শহীদ দিবস পালনের স্বপ্ন দেখছে তৃণমূল, তখন সেই একই দিনে পথে নামবে বিজেপিও। নির্বাচন পরবর্তী হিংসা নিয়ে ইতিমধ্যেই সরগরম রাজ্য রাজনীতি। এই নির্বাচন পরবর্তী হিংসার প্রতিবাদেই আগামী ২১ জুলাই রাস্তায় নামতে চলেছে গেরুয়া শিবির। রাজঘাট থেকে এই মিছিলে নেতৃত্ব দেবেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)।

আরো পড়ুন  OLX : ৮ হাজার টাকার এসি বিক্রি করতে গিয়ে পকেট থেকে গেল ৫০ হাজার

অন্যদিকে একই ভাবে কলকাতাতেও আয়োজিত হবে প্রতিবাদ মিছিল। সেই মিছিলে নেতৃত্ব দেবেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari )। বিজেপি তরফে জানানো হয়েছে ২১ জুলাই একদিকে যখন শহীদদের শ্রদ্ধাঞ্জলি দেবে তৃণমূল, তখনই অন্যদিকে বেলা সাড়ে এগারোটা থেকে পথে নামবে বিজেপি।

আরো পড়ুন  ১ কোটি টাকার লটারি, রাতারাতি চুরি

বিজেপির তরফ থেকে ব্যানার এবং পোস্টারের মাধ্যমে কলকাতাসহ রাজ্যজুড়ে নির্বাচন পরবর্তী হিংসার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানো হবে। ইতিমধ্যেই বিধানসভা থেকে শুরু করে, অন্যান্য সমস্ত ক্ষেত্রেই নির্বাচন পরবর্তী হিংসা নিয়ে শাসকদলের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে বিজেপি। রাজ্যে এসেছে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনও। তাদের রিপোর্টে যথেষ্ট অস্বস্তিতে পড়েছে তৃণমূল কংগ্রেস এ নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। শহীদ দিবসের দিন মিছিল যে শাসকদলের অস্বস্তি আরও কিছুটা বাড়াবে তা বলাই বাহুল্য।

Leave a Reply