গঙ্গানদীর ভাঙনকে জাতীয় বিপর্যয় হিসেবে বিবেচনা করতে প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ জানালেন অধীর চৌধুরী

দেবা দাস, কৃষ্ণনগর: ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের তান্ডব তার ওপর আবার নিম্নচাপ হয়ে বর্ষার প্রবেশ। এতে যেন এক ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করেছে গঙ্গা নদী। এই পরিস্থিতিতে মালদা এবং মুর্শিদাবাদে গঙ্গানদীর ভাঙনকে জাতীয় বিপর্যয় হিসেবে বিবেচনা করতে প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ জানালেন কংগ্রেসের লোকসভার নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী। এই সমস্যার প্রতিকার করতে পর্যাপ্ত তহবিলও চাইলেন অধীর।

আরো পড়ুন ‘সাথে আছি, পাশে আছি’ দমদম শ্রী অরবিন্দ বিদ্যামন্দির-এর শিক্ষক শিক্ষিকাদের বার্তা

নরেন্দ্র মোদিকে এক চিঠিতে অধীর লিখে জানান, প্রচুর পরিমাণ উর্বর জমি দিনের পর দিন গঙ্গার গ্রাসে চলে যাচ্ছে। দুই জেলার অসংখ্য সংখ্যালঘু মানুষ ‘নিউ-রিফিউজি’ অর্থাৎ নব্য-উদ্বাস্তু হচ্ছেন। কংগ্রেস নেতার কথায়, ‘ওঁরা বাস্তুহারা হচ্ছেন, জীবন নষ্ট হচ্ছে। কারও ক্ষেত্রে দারিদ্র অপরাধের পথে নিয়ে যাচ্ছে। তৈরি হচ্ছে নব্য-উদ্বাস্তুরা, সেই সঙ্গে জন্ম হচ্ছে নতুন সমস্যার।’

আরো পড়ুন ‘অশুভ লোক’ সব্যসাচীকে ফেরাবে না তৃণমূল, ‘বিশ্বাস’ করেন সুজিত

উদাহরণও পেশ করেছেন অধীর। তিনি জানিয়েছেন গঙ্গার পাড় ভাঙার কারণে উদ্বাস্তু হয়ে মুম্বইয়ের বাইকুল্লা অঞ্চলে আশ্রয় নিয়েছেন একদল মানুষ। সেখানে তাঁদের বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারী হিসেবে দাগিয়ে দেওয়া হচ্ছে, কারণ দেখানোর মতো কোনও পরিচয়পত্র নেই তাঁদের কাছে। সব চলে গেছে গঙ্গার গ্রাসে।

আরো পড়ুন শুভেন্দু অধিকারী কে ঘর ছাড়ার নোটিশ দিতে চলেছে রাজ্য সরকার

প্রধানমন্ত্রীকে চিঠিতে অধীর জানান, ‘ইউপিএ সরকারের আমলে এই সমস্যার জন্য বড়সড় অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছিল। আমার অনুরোধ, দয়া করে গঙ্গার ভাঙনের প্রতিকারে পর্যাপ্ত তহবিল দিন এবং বাস্তুহারাদের জীবন বাঁচান।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *