নিখোঁজ নাবালিকাকে দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর তৎপরতায় বাবা-মায়ের হাতে তুলে দিল।

সুজয় মন্ডল : নিখোঁজ নাবালিকাকে দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর তৎপরতায় বাবা-মায়ের হাতে তুলে দিল। স্থানীয় সূত্রে জানা যায় গত ৭ ই মার্চ সকালে পড়ার নাম করে স্বরূপনগর ব্লকের একেবারে সীমান্তঘেঁষা গ্রাম হাকিমপুরের এক নাবালিকা মেয়ে বাড়ি থেকে হঠাৎ চলে যায় । বহুক্ষণ বাড়িতে না ফেরায় বাড়ির অভিভাবক খোঁজাখুঁজি করতে থাকে । খুঁজে না পেয়ে স্থানীয় থানা তে নিখোঁজ হবার অভিযোগ করেন। এবং এক সময় জানতে পারে সে বাংলাদেশের গ্যাঁড়া খালি পোস্ট কেড়াগাছি জেলা সাতক্ষীরার বাসিন্দা তাজউদ্দিন দালালের সাথে বাংলাদেশি আছে । এরপর থেকে ওই নাবালিকার পরিবারের তরফ এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় স্থানীয় থানায় সাথে সীমান্তে থাকায় বাহিনীর কাছে সাহায্য নেওয়া হবে নাবালিকা মেয়েকে কিভাবে ভারতে ফিরিয়ে নিয়ে আসা যায় এই ভাবনা থেকে পরিবারের তরফ থেকে সাহায্য চাওয়া হয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কাছে। এইরকম একটি সীমান্ত লাগোয়া পরিবারের সাহায্যের আবেদন পেয়ে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী পক্ষ থেকে সহযোগিতা আশ্বাস দেন ।আজ সকালে আনুমানিক বারোটা নাগাদ দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর ফেলাক মিটিংয়ের ব্যবস্থা করা হয় ৷ এই কাজে সাহায্যের হাত বাড়ান বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলার কাকডাঙ্গা সীমান্তরক্ষী বাহিনীর নায়েক সুবেদার মহিদুল ইসলামের তৎপরতায় ওই ছেলে এবং নাবালিকাকে হাজির করে বাংলাদেশ সীমান্ত রক্ষী বাহিনী। এরপর ওই নাবালিকাকে বিএসএফের ১১২ নাগা ব্যাটেলিয়ানের কমান্ডার আদিত্য নারায়ন এর হাতে তুলে দেয়ন বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনীর আধিকারীক। এবং আইন অনুযায়ী মেয়েটির শারীরিক পরীক্ষার জন্য তাকে প্রথমে স্বরূপনগর ব্লকের শাড়াপুল গ্রামীণ হাসপাতাল চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। শারীরিক পরীক্ষার পর তাকে তার বাবা মায়ের হাতে তুলে দেয় বিএসএফ আধিকারিক।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *