Sonu Sood: ‘তুমি একজন হিরো’! সারার কোন উদ্যোগ দেখে প্রশংসা করলেন সোনু সুদ


#মুম্বই: করোনার দ্বিতীয় ঢেউতে (Second wave corona) গোটা দেশ জুড়ে হাহাকার চলছে। আর প্রথমবারের মতো এবারও করোনাকালের মসিহার মতো কাজ করছেন অভিনেতা সোনু সুদ (Sonu Sood)। করোনার গুরুতর উপসর্গ যাদের মধ্য়ে রয়েছে তাদের জন্য বিনামূল্যে জরুরিকালীন চিকিৎসা পরিষেবা দিচ্ছেন তিনি। সোনু নিজেও একটি ত্রাণ তৈরি করেছেন। সেই ত্রাণে এবার অর্থ দিয়ে সাহায্য করলেন অভিনেত্রী সারা আলি খান (Sara Ali Khan)।

সম্প্রতি সোনুর ত্রাণ তহবিলে অর্থ সাহায্য করেছেন সারা। সারার এই উদ্যোগে খুশি হয়ে টুইটারে একটি পোস্টের মাধ্য়মে তাঁর প্রশংসা করেছেন খোদ সোনু সুদ। জানিয়েছেন সারাকে নিয়ে তিনি গর্ববোধ করছেন। আগামীতেও যাতে সারা মানুষের পাশে দাাঁড়াতে আরও কাজ করেন, তার জন্যও উৎসাহ দিয়েছেন অভিনেতা। সোনুর মতে সারার এই কাজ তরুণ প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করবে এবং তারাও কঠিন সময়ে দেশের সাহায্য করতে উদ্যত হবেন।

সারাকে এই কাজের জন্য ‘হিরো’ বলে সম্বোধন করেন সোনু। অভিনেতা লিখেছেন, “ত্রাণ তহবিলে সাহায্য করার জন্য তোমায় অনেক ধন্যবাদ সারা আলি খান। তোমার জন্য গর্ববোধ করছি এবং এই ভালো কাজ করে যেও তুমি। তুমি দেশের তরুণ প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করেছ এই কঠিন সময়ে দেশের মানুষের জন্য কাজ করতে। তুমি একজন হিরো।”

করোনার এই হাহাকারে নিজের সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টের মাধ্যমেও মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছেন সারা। অক্সিজেন বা বেডের খোঁজ দিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। কখনও সোনুকে কোনও পোস্টে ট্যাগ করেছেন সাহায্য করার জন্য। সিম্বা ছবিতে সারা ও সোনু সুদ একসঙ্গ কাজ করেছেন। এই ছবিতে সারার বিপরীতে ছিলেন রণবীর সিং।

প্রসঙ্গত, করোনার প্রথম ঢেউ থেকে মানুষকে সাহায্য করছেন সোনু। সম্প্রতি, ছোট্ট বয়েসেই যারা একূল-ওকূল হারিয়ে সর্বস্বান্ত হয়েছে, সেই শিশুদের জন্য মসিহা হয়ে এগিয়ে এসেছেন সোনু সুদ ও প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জোনাস (Priyanka Chopra Jonas)। করোনার গ্রাসে যে সমস্ত শিশুরা তাঁদের বাবা-মাকে হারিয়েছে তাদের শিক্ষার দায়িত্ব কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারকে নিতে হবে বলে ট্যুইটে আবেদন করেছিলেন সোনু সুদ। তাঁর সেই আবেদনকে সমর্থন করেন বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা। সোনুর এই ট্যুইট সামনে আসতেই দেশের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তাঁকে চাইছেন অভিনেতার অনুগামীরা।





Source hyperlink

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *